ঢাকা, রবিবার, ২৮ মে ২০১৭, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪

সৌদিতে আটকে রেখে নেশা খাইয়ে বাংলাদেশী গৃহবধূকে গণধর্ষণ

গৃহকর্মীর কাজ দেয়ার কথা বলে কুলাউড়ার এক গৃহবধূকে সৌদি আরব নিয়ে আড়াই মাস আটকে রেখে গণধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। ওই গৃহবধূ দেশে ফিরে এসে গত ৮ মার্চ থানায় ও রোববার গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে এ অভিযোগ করেছেন।


গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূর বাড়ি কুলাউড়া পৌর এলাকার দতরমুড়ি গ্রামে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, জয়চণ্ডী ইউনিয়নের কামারকান্দি গ্রামের মৃত আবদুল আলীর ছেলে শাহজাহান মিয়া গৃহকর্মীর কাজ দেয়ার কথা বলে গৃহবধূকে ভিসা দিয়ে সৌদি আরবে নেয়। ভিসা বাবদ ৫০ হাজার টাকা নেন শাহজাহান মিয়ার ভাই ও ভবানীপুর গ্রামের তাদের ভগ্নিপতি কনু মিয়া।

২০১৬ সালের ১৫ নভেম্বর সৌদি আরব যান ওই গৃহবধূ। সৌদি আরবে এয়ারপোর্ট থেকে গৃহবধূকে নিজের বাসায় নিয়ে যায় শাহজাহান। সেই বাসায় আটকে রেখে তাকে কয়েকবার ধর্ষণ করে শাহজাহান। পরে রোজ পাঁচ-ছয়জন করে লোককে দিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ করায়। এতে গৃহবধূ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। কিন্তু তাতেও তাকে রেহাই দেয়নি নরপশুরা।

জোর করে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে অচেতন করে তাকে গণধর্ষণ করা হতো। অবস্থা বেগতিক দেখে ১১ ফেব্রুয়ারি গৃহবধূকে দেশে পাঠায় শাহজাহান মিয়া। দেশে ফিরে ১৫ ফেব্রুয়ারি কুলাউড়া হাসপাতালে ভর্তি হন গৃহবধূ। পরে ৮মার্চ কুলাউড়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযুক্ত শাহজাহান মিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে সে ওই গৃহবধূকে সৌদি আরব নেয়ার সত্যতা স্বীকার করে। কুলাউড়া থানার ওসি মো. শামসুদ্দোহা পিপিএম জানান, অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Posted by Newsi24

এ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

প্রবাস এর সর্বশেষ খবর



রে