ঢাকা, বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৭, ১৩ বৈশাখ ১৪২৪

তারুণ্যের প্রেম - ভালোবাসা

মো.জাভেদ হাকিম
আজকাল তারুণ্যের মাঝে একটা ভ্রান্ত ধারণা বেশ গভীর ভাবে প্রোথীত হয়েছে, প্রেম-ভালোবাসা শুধু বিপরীত লিঙ্গের প্রতিই হতে হয়। এরকম মানসিকতাই আজ অধিকাংশ তারূণ্যকে অন্ধকারের গলীতে ধাবিত করছে। প্রেম-প্রীতি-ভালোবাসা সন্তানের প্রতি অভিবাবকের,ভাইয়ের প্রতি বোনের,প্রতিবেশিদের প্রতি,আত্মীয়-স্বজনের মাঝে ও গুরুর প্রতি শিষ্যের।ঠিক এমনি ভাবে সবার প্রতি সবার মাঝেও গভীর ভালোবাসা’র জম্ম হতে পারে। এমন কি জীব-জন্তুর প্রতিও মায়া ভালোবাসা-প্রেম সৃষ্টি হতে পারে।


পৃথিবীতে এমন অনেক নজির রয়েছে যেখানে পালিত প্রাণীর জন্য মণীব কিংবা মণীবের জন্য প্রাণী তার প্রাণ পর্যন্ত বিসর্জন দিয়েছে। অথচ আজ আমাদের অজ্ঞতা,অদূর দর্শিতা ভালোবাসা নামক পবিত্র শব্দটাকে প্রতিনিয়ত করছে কলঙ্কীত। সময় এসেছে এখন এই সামাজিক অবক্ষয় হতে নব প্রজম্ম আর উদিয়মান তারুণ্যেকে অন্ধকার হতে আলোর দিশারী দেখানোর।এর জন্য চাই প্রথমেই পারিবারিক শিক্ষা। পরিবার হতেই শেখাতে হবে ভালোবাসা সবার জন্য। বিভিন্ন কাব,সংগঠন,রাজনৈতীক দলের নেতা কর্মীরদের মাঝেও ভালোবাসার বন্ধণ অটুট রাখতে হবে।

ভালোবাসার মায়া যখন নেতা কর্মীর মাঝে বিরাজ করবে তখন এই ঘুণে ধরা সমাজে বখে যাওয়া প্রজম্মকে নতুন করে আলোর পথ দেখাবে। পুরো একটি সমাজ ব্যবস্থাকে পাল্টে দেয়ার অসীম ক্ষমতা রাখে মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসা। যে শিশুটি ছোট্ট থেকেই বড়দের আদর ভালোবাসা পেয়ে বড় হবে সে কখনো অন্যের প্রতি অন্যায় করতে জানবে না।

যে পরিবারে যত বেশী ভালোবাসার বন্ধণ গাড় সে পরিবারের সদস্যরা সমাজের জন্য ততো বেশী নিরাপদ। ভালোবাসার অভাব থেকেই মানুষ এমন কী পালিত প্রাণী গুলোও বখে যায়। যে রাজনৈতীক দলের নেতা-কর্মীদের মাঝে ভালোবাসা যতো বেশী বহমান সেই দলের মাধ্যমে দেশ ও জাতির কল্যাণ ততোটাই নিশ্চীত। প্রেম-প্রীতি ভালোবাসা এমন এক প্রাকৃতিক পরা শক্তি যার কাছে বনের হিংস্র জন্তু পর্যন্ত হার মানে।

সমাজ থেকে ভালোবাসা দিনকে দিন বিলীন হবার কারণেই আজ এতটা সামাজিক অবক্ষয়। চারদিকে হানাহানী নেই কোন কারো প্রতি শ্রদ্ধা ভক্তি। সুস্থ জ্ঞানের অভাবেই নব প্রজম্ম আজ ভালোবাসা বলতে বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ বুঝে। যার পরিণতী অনেকাংশেই গড়ায় অসুস্থ মানসিকতার বিকৃত রূচির প্রতি।। সময় এখনো ফুরিয়ে যায়নি-তাই অতি দ্রুত সচেতন মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে,ঘুণে ধরা এই সমাজের ভয়াবহ অবক্ষয় রোধে।ভালোবাসতে হবে,ভালোবাসা শেখাতে হবে-প্রতিটি স্তরে ছড়িয়ে দিতে হবে সহমর্মিতা ও মমত্ববোধ।

Posted by Newsi24

লেখকের কলাম এর সর্বশেষ খবর



রে