ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৭, ১২ বৈশাখ ১৪২৪

বিএনপির ‘সুপার ফাইভ’ কমিটি : উত্তরে কাইয়ুম, দক্ষিণে সোহেল!

ঢাকা মহানগর বিএনপির বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। ‘নতুন কমিটি’ গঠন নিয়েও দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা আছে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে। কিন্তু কবে নাগাদ কমিটি ঘোষণা করা হবে— দলের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনো কোনো সুস্পষ্ট ঘোষণা আসেনি। তবে হঠাৎ করেই আবারও আলোচনায় নগর কমিটি। যেকোনো সময় কমিটির ঘোষণা আসতে পারে - দলীয় সূত্রে এমনটাই জানা গেছে।

মহানগর বিএনপিকে উত্তর ও দক্ষিণ দুই ভাগ করে ‘সুপার ফাইভ’ খসড়া কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে। এ ছাড়া বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নির্দেশেই কমিটির খসড়া তালিকা জমা দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি ৪৯টি থানা, ১০০টি ওয়ার্ড ও ৭টি ইউনিয়ন কমিটির তালিকাও জমা দেওয়া হয়।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির ‘ভোটারবিহীন নির্বাচনকে’ কেন্দ্র করে রাজধানীতে কোনো সক্রিয় আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি ঢাকা মহানগর বিএনপি। তখনকার কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন সাদেক হোসেন খোকা। ২০১৩ সালে ২৯ ডিসেম্বর ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ কর্মসূচিতে নগরীর নেতাকর্মীদের মাঠে নামাতে ব্যর্থ হন সাদেক হোসেন খোকা। ব্যর্থতার দায়ে খোকার কমিটি ভেঙে নতুন করে দায়িত্ব দেওয়া হয় মির্জা আব্বাসকে। মহানগর বিএনপির দায়িত্ব নিয়ে মির্জা আব্বাস হুঙ্কার দিলেও আন্দোলনে সক্রিয় কোনো ভূমিকা রাখতে পারেননি। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের বর্ষপূর্তিতে আন্দোলন গড়তে ব্যর্থতার পরিচয় দেন তিনি। যে কারণে এ দুই নেতার ওপর আস্থা হারাচ্ছে দলের হাইকমান্ড। ফলে মহানগর বিএনপিতে তাদের প্রাধান্য কতটুকু থাকবে এ নিয়ে এখন বিচার বিশ্লেষণ করে নতুন কমিটি গঠন করা হচ্ছে।

বিএনপির প্রায় ৬ থেকে ৭ জনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তারা জানান, ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাচ্ছেন বর্তমান কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক এম এ কাইয়ুম। এ ছাড়া সাধারণ পদে দায়িত্ব পাচ্ছেন আহসান উল্লাহ হাসান। আর সুপার ফাইভে থাকতে পারেন- আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, বজুলল বাসিত আনজু, এম কফিল উদ্দিন, আতাউর রহমান। মহানগর দক্ষিণে সভাপতির দায়িত্ব পাচ্ছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর কমিটির সদস্য সচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল। সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাচ্ছেন ইউনুস মৃধা। এ ছাড়া সুপার ফাইভে থাকতে পারেন, কাজী আবুল বাশার, নবিউল্লাহ নবী, আব্দুল লতিফ খান, মোশাররফ হোসেন, হারুণ অর রশিদ, রবিউল ইসলাম রবি, তানভীর আহমেদ রবিন, আনম সাইফুল ইসলাম, হাবীবুর রশিদ হাবীব।

বিএনপির এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘কমিটি চূড়ান্ত করা আছে। ঘোষণা দিলেই হয়। কিন্তু আগে থেকে কিছুই বলা যাচ্ছে না। কখন ঘোষণা করা হবে তা দলের হাইকমান্ডই ভালো বলতে পারেন।’

ঢাকা মহানগর বিএনপির কমিটির প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ঢাকা বিভাগীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ বলেন, ‘শিগগিরই ঢাকা মহানগর বিএনপির কমিটির ঘোষণা করা হবে। কমিটি গঠনের কাজে শেষ পর্যায়ে আছে। আশা করি, আমরা সকলের কাছে আস্তাবাজন একটি কমিটি উপহার দিতে পারব। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আহ্বানে সাড়া দিয়ে যাদের নেতৃত্বে আগামী দিনে রাজপথ আন্দোলন জোরদার হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি, এমন একটি কমিটি হবে যারা বিগত দিনের আন্দোলন থেকে শিক্ষা নিয়ে সারাদেশে নেতৃত্ব দেবেন।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে আহ্বায়ক ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেলকে সদস্য সচিব করে ২০১৪ সালের ১৮ জুলাই ঢাকা মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। গঠিত এ কমিটিকে ১ মাসের মধ্যে সব ওয়ার্ড ও থানা কমিটি এবং ২ মাসের মধ্যে মহানগর পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নতুন কমিটি গঠনে ব্যর্থ হন তারা। এরপর প্রায় তিন বছর হতে চলছে মহানগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি এখনো আলোর মুখ দেখেনি।

Posted by Newsi24

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর



রে