ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০১৭, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪

১০ জনের ৮ জনই মহাজোটের সম্ভাব্য প্রার্থী

জাতীয় নির্বাচন এখনো প্রায় দেড় বছর বাকি তা সত্ত্বেও ঢাকা ৫ আসনে এখনি নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু করেছে ক্ষমতাসীন দলের নেতাসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতারা।

এরি মধ্যে সামাজিকভাবে এলাকার মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছে সম্ভাব্য প্রার্থীরা যাতে দলের মনোনয়ন পেতে সহায়ক হয়। এ আসনে মহাজোটেরী প্রায় ৮ জন প্রার্থী আছে। এদের মধ্যে ৪ জনই আওয়ামী লীগের। বিএনপির আছে দুইজন।

এই আসনে আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা ছাড়াও নৌকার মনোনয়ন পেতে আলোচনায় রয়েছে যাত্রবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব কাজী মনিরুল ইসলাম মনু, ৪৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও এ ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী আবুল কালাম অনু, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা হারুনর রশিদ মুন্না।

জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির দুই নেতা হলো, আলহাজ্ব সালা উদ্দিন আহমেদ ও নবী উল্লাহ্ নবী। যদিও কারো কারো মতে ঢাকার ৪ আসন থেকে নির্বাচন করতে পারে আলহাজ্ব সালা উদ্দিন আহমেদ।

এই আসনে একাদশ নির্বাচনের আলোচনায় রয়েছে তরিকত ফেডারেশনের আরজু শাহ সায়েদাবাদী, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির আবদুর রশিদ সরকার, জাতীয় পার্টির (জেপি) মনির হোসেন কমল এবং জাতীয় পার্টি (এরশাদ) হাজী সাইফুদ্দীন আহমেদ মিলন।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বর্তমান সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা আগামীতেও এই আসনে আওয়ামী লীগের ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে তিনি টিকেট পাবে।

সাবেক বৃহত্তর ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ইসমাইল খান বিডি২৪লাইভকে বলেন, এ আসনে নেত্রী শেখ হাসিনার অবদানেই মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার হয়েছে। তিনি উন্নয়ন করছে। এমপির কথা বলতে পারবো না। তবে মানুষের কল্যানের জন্য যিনি দিন-রাত নিজেকে সুপে দিচ্ছে তিনি হলেন এ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী আবুল কালাম অনু। আশা করবো তিনি আরও বড় জায়গায় আসবেন এবং মানুষের কল্যানে কাজ করবেন।

ইসমাইল বলেন, রাজনৈতিক ক্ষমতা কারো চিরস্থায়ী ভাবে থাকে না। ক্ষমতা পেলে যথাযথ প্রয়োগ করাই হলো যোগ্য নেতার কাজ। আমাদের অনু ভাই তাই করছেন। তিনি সব সময় মানুষের কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে ভালবাসেন।

রাজনৈতিক কার্যকলাপে এখানে বিএনপির কেউ মাঠে নেই। তবে আগামীতে বিএনপি নির্বাচনে আসলে সুন্দর একটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি মনে করেন।

ব্যবসায়ী মোঃ খায়রুল আলম বলেন, আমি শুধু বলতে পারি এখানে কোন ঝামেলা ছাড়া শান্তিতে ব্যবসা করছি। রাজনীতির খবর আমি ভালো জানি না বলতে পারবো না।
এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, বিএনপির দুই নেতাই দলীয় কর্মকান্ডের সঙ্গে কাজ করছেন। নেতাকর্মীদেরও সময় দিচ্ছে।

তবে আলহাজ্ব সালাউদ্দিন আহমেদ বুঝে শুনে টিকেট চাইবে। আওয়ামী লীগের বা মহাজোটের একাধিক প্রার্থী হলে এখান থেকেই নির্বাচনে অংশ নিবেন তিনি। আর তা না হলে ঢাকা ৪নং আসন থেকে নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে।

এই আসনের মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ১০ হাজার ২৮৫। পুরুষ ভোটার ২ লাখ ১৩ হাজার ৫১৫, আর মহিলা ভোটার ১ লাখ ৯৬ হাজার ৭১৭। মোট ভোটকেন্দ্র ১৪৫টি। ওয়ার্ড ৪৮, ৪৯ ও ৫০, শ্যামপুর, যাত্রাবাড়ী, ডেমরা, দনিয়া, মাতুয়াইল এবং সারুলিয়া ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এই নির্বাচনী আসনটি।

Posted by Newsi24

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর



রে