ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০১৭, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টর্নেডোর আঘাতে কয়েক গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের মৈন্দ,বাড়িউড়া মজলিশপুর সদরসহ পাঁচটি গ্রামের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কয়েক মিনিট স্থায়ী টর্নেডোর আঘাতে উঠতি ফসলি জমি,পোল্ট্রি ফার্মসহ অন্তত ২০টি বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৯ এপ্রিল) ভোর ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

টর্নেডোর আঘাতে এলাকার বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো ভেঙে বিধ্বস্ত হওয়ায় ভোর থেকে পুরো এলাকা বিদ্যুৎহীন অবস্থায় রয়েছে। পাকা ধান জমিতে পড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত মৈন্দ মধ্যপাড়া এলাকার পোল্ট্রি খামারি সোলেমান মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমার সব শেষ! আমার খামারের ১ হাজার ৪৮০টি মুরগি টর্নেডোর আঘাতে কয়েক মিনিটে মরে গেছে। কীভাবে এই ক্ষতিপূরণ হবে বুঝে উঠতে পারছি না।’

টর্নেডোর বর্ণনা দিয়ে একই এলাকার নূর ইসলাম,কুলসুম বেগম ও আন্দর চাঁন বিবি বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, হঠাৎ শোঁ-শোঁ শব্দ আর ‘বাঁচাও ,বাঁচাও’ বলে মানুষের চেঁচামেচি শুনলেন তারা। এরপর পুরো গ্রাম নিস্তেজ হয়ে পড়ে। আর কোনও আওয়াজ পাননি কেউ।

রাত পোহানোর পর গ্রামবাসী দেখেন বড় বড় গাছ ভেঙে পড়ে আছে রাস্তার ওপর। বৈদ্যুতিক খুঁটিও ভেঙে পড়েছে। নূর ইসলাম,কুলসুম ও চাঁন বিবি বাংলা ট্রিবিউনকে বললেন, ‘ক্ষেতের ধান শুইয়া গেছে পানির তলে। ভোর থেকেই বিদ্যুৎ নাই। এমন দূরবস্থার মধ্যে গ্রামের চেয়ারম্যান আইয়াও আমাদের খবর লয় নাই।”

মজলিশপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শাহরিয়ার ফিরোজ বলেন,‘ঘটনার পর পুরো এলাকা ঘুরে দেখেছি। ক্ষতিগ্রস্তরা দুর্ভোগে আছে। তাদের জরুরি ভিত্তিতে সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘টর্নেডোর আঘাতে এলাকায় বিদ্যুৎ লাইনের যে ক্ষতি হয়েছে তাতে মনে হয় না সহসা এখানে আলো জ্বলবে।’

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, ‘টর্নেডোর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্তদের বিষয়ে আমরা অবগত আছি। তাদের ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে তালিকা প্রণয়ন করা হচ্ছে।’

Posted by Newsi24

এ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

দেশ এর সর্বশেষ খবর



রে